11/09/2022
"ইয়া রব" গানের অ্যালবামের মাধ্যমে জনপ্রিয়তার তুঙ্গে উঠে ভারতের মৈথিলী ঠাকুর।
মীর আসলাম (রাউজান নিউজ) মীর আসলাম (রাউজান নিউজ)


২২ বছর বয়সী জনপ্রিয় শিল্পী মৈথিলী ঠাকুর।  ডাক নাম তন্নু। জন্ম ২০০০ সালের ২৫, জুলাই ভারতের বেনিপট্টি, মধুবনী, বিহারে জন্মগ্রহণ করেন।।  পিতা পন্ডিত রমেশ ঠাকুর ও মাতা ভারতী ঠাকুর। শিক্ষাগত  যোগ্যতা স্নাতক পাস। তার শখ ফ্যাশন এবং গান গাওয়া। সনাতন ধর্মাবলম্বি এই শিল্পীর উচ্চতা: ১৫৮ সেমি বা ১.৫ মি বা ৫ .১৮ ফুট। দুই ভাই বিশাভ ঠাকুর ও আয়াচি ঠাকুর। 


 তিনি প্রথমে ভারতীয় শাস্ত্রীয় সঙ্গীত এবং লোকসংগীতে প্রশিক্ষণ নেন। ২০১৭ সালে যখন তিনি  কালারস টিভির গাওয়া রিয়েলিটি শো "রাইজিং স্টার"-এর অনুষ্ঠানে প্রথমবারের মত প্রকাশ্যে আসেন। তিনি  ভোজপুরি, পাঞ্জাবি, মারাঠি, তামিল, ইংরেজি এবং আরও অনেক কিছুতে মূল গান, কভার এবং ঐতিহ্যবাহী লোক সঙ্গীত গেয়ে সঙ্গীত জগৎ এ আলোড়ন তুলেন ৷ তার প্রথম অ্যালবাম "ইয়া রব" গানের মাধ্যমে ভারত জুড়ে আত্মপ্রকাশ করেন।


জানা যায়, ছোটবেলা থেকেই গান শেখার আগ্রহ ছিল তার। মাত্র ৪ বছর বয়সে তিনি তার দাদার কাছ থেকে গান শেখা শুরু করেন।  সিনিয়র সেকেন্ডারি শিক্ষা শেষ করার জন্য দিল্লির বাল ভবন ইন্টারন্যাশনাল স্কুলে পড়েন। বাবা রমেশ ঠাকুর একজন সঙ্গীত শিক্ষক এবং তার মা ভারতী ঠাকুর একজন গৃহিণী। ৬ বছর বয়সের মেয়ের মেধা ও সম্ভাবনা দেখে তার বাবা ভালো সঙ্গীত শিক্ষায় মনোযোগি করেন। মৈথিলী দুই ভাই, রিশাভ এবং আয়াচিরকে সাথে নিয়ে গান করেন। তারা ফোক, হিন্দুস্তানি শাস্ত্রীয় সঙ্গীত, হারমোনিয়াম এবং তবলায় প্রশিক্ষণ নিয়ে মৈথিলির সাথে থাকেন।  ভাইয়েরা বাল ভবন ইন্টারন্যাশনাল স্কুলে অধ্যয়ন করেছেন।

 

তারা ভারতের বিভিন্ন রাজ্য এবং জাতীয় পর্যায়ের প্রতিযোগিতায় অংশ নিয়ে পুরষ্কার জিতেন। মৈথিলী ঠাকুর    ইন্ডিয়ান আইডল জুনিয়রে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন, যা সনি টিভিতে প্রচারিত হয়। ২০১৬ সালে "আই জিনিয়াস ইয়াং সিংগিং স্টার" প্রতিযোগিতা জিতেছিলেন, যার পরে তিনি তার অ্যালবাম, ইয়া রাব্বা (ইউনিভার্সাল মিউজিক) চালু করেন। মৈথিলি প্রথম শো-এর ফাইনালিস্ট ছিলেন, ওম নমঃ শিবায় গেয়ে। যেটি তাকে  সরাসরি ফাইনালে প্রবেশ করেছিল।

 

তিনি এই শো’তে রানার আপ হয়েছিলেন, চ্যাম্পিয়নে মাত্র দুই ভোটে হেরেছিলেন। শোটি অনুসরণ করে, তার ইন্টারনেট জনপ্রিয়তা উল্লেখযোগ্যভাবে বেড়ে যায়। ২০১৯ এর পর থেকে: ফেসবুক এবং ইউটিউবে ভিডিওগুলি থেকে তিনি খ্যাতি অর্জন করতে থাকে।

এই সাফল্যের ধারাবাহিকতায় তিনি  বিভিন্ন জাতীয় এবং আন্তর্জাতিক ইভেন্ট, সাহিত্য উৎসবে পারফর্ম করেন। তিনি ভারত সরকার অটল মিথিলা সম্মানে ভূষিত হন।  ২০১৯ সালে মৈথিলি এবং তার দুই ভাই, রিশাভ এবং আয়াচিকে নির্বাচন কমিশন মধুবনীর ব্র্যান্ড অ্যাম্বাসেডর করেছে৷
রিশাভ তবলায় এবং আয়াচি একজন গায়ক। তারা প্রায়শই পারফর্ম করেন মৈথিলী ঠাকুরের সাথে।  উইকিপিডিয়ার রেকর্ডে মৈথিলী ঠাকুর ভারতের অন্যতম জনপ্রিয় গায়ক। 

 


  • VIA
  • মীর আসলাম (রাউজান নিউজ)
  • TAGS



LEAVE A COMMENT

সোশাল মিডিয়া

ক্যালেন্ডার