হালদা নদীতে রুই জাতীয় মাছ ডিম ছেড়েছে, গত বছরের তুলনায় কম

89

কামরুল ইসলাম বাবু :

চট্টগ্রামের প্রাকৃতিক মৎস্য প্রজনন ক্ষেত্র হালদা নদীতে ডিম ছেড়েছে রুই (রুই, কাতলা, মৃগেল ও কালিবাউশ) জাতীয় মাছ। শনিবার দিনে ‘নমুনা’ ডিম পাওয়া গেলেও সন্ধ্যার পর থেকে ডিমের পরিমাণ বাড়তে থাকে। ২৬ মে রবিবার এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত নদীতে ৭০০০ কেজি ডিম আহরণ হয়েছে বলে জানাযায়।


হালদার ডিম সংগ্রহকারী কামাল উদ্দিন সওদাগর জানানিয়েছেন রাত ১টার পর থেকে ডিমের পরিমান বাড়তে থাকে এক একটি নৌকায় ১৪/১৫ কেজি ডিম সংগ্রাহকরেছে। ডিম সংগ্রহ প্রত্যক্ষ করেছেন হাটহাজারী উপজেলা প্রসাশন, রাউজান উপজেলা প্রসান ও চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের হালদা রিভার রিচার্স ল্যাবরেটরি। হালদা বিশেষজ্ঞ ও চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাণিবিদ্যা বিভাগের প্রফেসর ড. মো. মনজুরুল কিবরীয়া জানিয়েছেন- গত বছরের তুলনা এ বছর ডিম সংগ্রহ হয়েছে অনেক কম। এ বছর ২৩০টি নৌকায় ৭০০০ হাজার কেজি ডিম সংগ্রহ হয়, যার থেকে আগামী ৪দিন অনুকুল পরিবেশ থাকলে ১১৭ কেজি রেনু উৎপান্ন হবে। ২০১৮ সালে ৪০৫টি নৌকায় ২২ হাজার ৬৮০ কেজি ডিম সংগ্রহ করেছিল। যা থেকে ৩৭৮ কেজির রেনু উৎপাদন করা হয়।
ডিম কমে যাওয়া প্রসঙ্গে ড. মো. মনজুরুল কিবরীয়া বলেন, হালদা নদীতে অপরিকল্পিত উন্নয়ন হয়েছে, বেড়িবাধ, যত্রতত্র প্লাষ্টিক ব্যাগে বালি নিক্ষেপ, বড় বড় ড্রেজার চলাচলের কারনে মা মাছোর প্রাকৃতিক পরিবেশ বিনষ্ট হয়েছে যার কারনে এ বছর ডিম সংগ্রহ তিন ভাগের এক ভাগ নেমে এসেছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here