স্কুলছাত্রীকে যৌন হয়রানীর অভিযোগে শিক্ষক আটক

167

বরিশাল (সংবাদদাতা)♦ স্কুলছাত্রীকে যৌন হয়রানীর অভিযোগে শিক্ষক আটক। কোচিং সেন্টারে স্কুলছাত্রীকে যৌন হয়রানীর অভিযোগে বরিশাল নগরীর হালিমা খাতুন মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের এক শিক্ষককে আটক করেছে পুলিশ।

অাজ সোমবার (১৩-মে) বেলা সাড়ে ১১টার দিকে স্কুলের শ্রেণি কক্ষে পাঠদান করা অবস্থায় তাকে আটক করা হয়।

যদিও পুলিশের দাবি আটক নয়, বরং জিজ্ঞাবাদের জন্য ওই শিক্ষককে থানায় ধরে নেয়া হয়েছে।

অভিযুক্ত শিক্ষকের নাম এনামুল হক নাসিম। তিনি হালিমা খাতুন বালিকা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের গণিত শিক্ষক।

এদিকে, আটকের ঘটনার পরপরই ছাত্রীকে যৌন হয়রানীর অভিযোগে অভিযুক্ত শিক্ষক এনামুল হক নাসিমকে সাময়িকভাবে বরখাস্ত করেছে স্কুল কর্তৃপক্ষ। পাশাপাশি অভিযোগ ৫ সদস্য বিশিষ্ট একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে।

হালিমা খাতুন বালিকা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক এসএম ফখরুজ্জামান এই তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

অভিযোগ সূত্রে জানাগেছে, হালিমা খাতুন মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক এনামুল হক নাসিম স্কুল সংলগ্ন গোরাচাদ দাশ রোডের একটি বাসার নিচতলা ভাড়া নিয়ে সেখানে কোচিং বাণিজ্য পরিচালনা করে আসছিলেন। গত সপ্তাহে বিকেলে কোচিং শেষ হলে সকল শিক্ষার্থী চলে গেলেও হালিমা খাতুন মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ১০ম শ্রেণির এক ছাত্রীকে পড়ার অজুহাতে কোচিং সেন্টারে রেখে দেয়।

এর কিছুক্ষণ পরে কথা বলার ছলে শিক্ষক এনামুল হক নাসিম শিক্ষার্থীর শরীরের স্পর্শকাতর অংশে হাত দেয়। তখন ওই শিক্ষার্থী ভয়ে কান্নাকাটি শুরু করলে শিক্ষক নাসিম তাকে ছেড়ে দেয়।

শিক্ষার্থীরা অভিযোগ করেছেন, শিক্ষক নাসিম এর আগেও এ ধরনের একাধিক ঘটনা ঘটিয়েছেন। প্রায়ই অশ্লীল ও কু-প্রস্তাব দেয়াসহ শিক্ষার্থীদের জোর পূর্বক কোচিং করনোর অভিযোগ করা হয়েছে তার বিরুদ্ধে। আর এজন্য বিদ্যালয়ের অন্যান্য শিক্ষার্থীরা বিদ্যালয়ের বিভিন্ন দেয়ালে প্রতিবাদ স্বরুপ ‘নাসিম স্যার থেকে সাবধান’ এমন শ্লোগানও লিখে রাখে।

শিক্ষার্থীদের অভিভাবকদের অভিযোগ, বিষয়টি স্কুল কর্তৃপক্ষকে জানানো হয়েছি। কিন্তু তারা ওই শিক্ষকের বিরুদ্ধে কোন ব্যবস্থা না নিয়ে উল্টো তাকে অভিযোগ থেকে বাঁচাতে শুরু করে। যার অংশ হিসেবে গত শনিবার রাতে শিক্ষকরা বিষয়টি নিয়ে গোপন বৈঠকও করেন।

এদিকে, বরিশাল কোতয়ালী মডেল থানার সেকেন্ড অফিসার (উপ-পরিদর্শক) মো. মোস্তাফিজুর রহমান জানান, হালিমা খাতুন বালিকা বিদ্যালয়ের শিক্ষক এনামুল হক নাসিম এর বিরুদ্ধে একই স্কুলের ১০ম শ্রেণির এক ছাত্রীকে যৌন হয়রানীর অভিযোগ পাওয়া গেছে। মৌখিত এই অভিযোগের ভিত্তিতে সোমবার (১৩ মে) তাকে স্কুল থেকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ধরে আনা হয়েছে। অভিযোগের সত্যতা পেলে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

রাউজান নিউজ/অামির হামজা.বার্তা বিভাগ

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here