রাউজানে পুকুরে পানিতে ডুবে শিশু কন্যার মৃত্যু

169

আমির হামজা, (রাউজান নিউজ)♦ রাউজানে পুকুরে পানিতে ডুবে শিশু কন্যার মৃত্যু।চট্টগ্রামের রাউজানে পুকুরের পানিতে পড়ে মরিয়ম (২) নামের এক শিশু কন্যার মৃত্যু হয়েছে । গত মঙ্গলবার (৭-এপ্রিল) বিকাল সাড়ে ৫ টার সময় এ ঘটনা ঘটে। ঘটনাটি ঘটে উপজেলার উত্তর গচ্ছি গ্রামের মেীলনা হাসান আলীর বাড়িতে। নিহত মরিয়ম সেই ১৪ নং বাগোয়ান ইউনিয়নের মো: আবুল খায়ের মেয়ে।

প্রতিবেশী সাকিব জানায়, খেলাধুলা করতে গিয়ে বাড়ির পাশের পুকুরে পড়ে পানিতে তলিয়ে যায় মরিয়ম। পরে তার মা ঘরে দেখতে না পেয়ে অনেক খোঁজাখুঁজির পর তার মরদেহ পুকুরের পানিতে ভেসে থাকতে দেখে চিৎকার শুরু করে। পরে প্রতিবেশীরা এসে তাকে উদ্ধার করে নোয়াপাড়া পাইওনিয়ার হাসপাতালে নিয়ে যান। সেখানে চিকিৎসক মরিয়মকে মৃত ঘোষণা করেন। রাত ১০ টার সময় তার জানায়জা সম্পূণ হয়।’

উল্লৈখ, প্রতিবছর রাউজানে ৪০/৫০ জন শিশু পানিতে ডুবে মৃত্যু হয়।

এবিষয়ে মুঠফোনে রাউজানের ছেলে চট্টগ্রাম মা ও শিশু হাসপাতালের চিকৎসক সুকান্ত মহাজন (রনি) রাউজান নিউজ’কে বলেন, পানিতে ডুবে শিশু মৃত্যুর প্রধান কারণ আমাদেও মায়ের বা অভিভাবকের অসচেতনতা অন্যতম কারণ। তারা দুপুরের নিরিবিলি সময়টাতে বেশি পছন্দ করে খেলাধুলা করতে, এসময় আশপাশে যদি কোন পুকুর দেখেন তারা পানি নিয়ে খেতে বেশি ভালোবাসেন, এসব পানি কিন্তু তাদের জন্য বড় একটি বিপদজ্জনক হয়ে পড়ে।

এজন্যে তাদেরকে চোখে চোখে রাখা প্রয়োজন, এবং পাশাপাশি সাঁতার শিখানো প্রয়োজন। শিশুরা যে কেবল দুপুরে খেলাধূল করবে এমনটি নয় ওরা সুযোগ পেলে মা-বাবা-অভিভাবকের নিজের ব্যস্ততার ফাঁকে, অথবা টিভি দেখা মগ্ন রান্না করা কাজে ব্যস্ত সময়ে শিশুরা খেলতে যেতে পারে। এসময় তারা পানিতে পড়ে মৃত্যু হয়। প্রতিটি অভিভাবকে তাদের শিশুর প্রতি খেয়াল রাখতে হবে , এবং তাদের প্রতি দায়িত্বশীল বিষয়ে নিশ্চিত হওয়া এবং মানসিকতা বজায় রাখা অতীব জরুরি। অতএব অভিভাবক দের সতর্কতা ও সচেতনতার প্রতি আমরা গুরুত্বারোপ করছি । এর জন্য প্রয়োজন সমাজিক প্রতিরোধ ও সচেতনতা।

রাউজান নিউজ/অামির হামজা.বার্তা বিভাগ

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here