রাউজানে ছড়াকার সুকুমার বড়ুয়ার ৮১তম জন্মদিন আজ

195

স্টাফ রিপোর্টাস♦ 

রাউজানে ছড়াকার সুকুমার বড়ুয়ার ৮১তম জন্মদিন আজ। ছড়া পাঠ ও সংবর্ধনার পাশাপাশি নানা আয়োজনে পালন হতে যাচ্ছে ছড়াকার সুকুমার বড়ুয়ার ৮১তম জন্মবার্ষিকী।

১৯৩৮ সালের ৫ জানুয়ারি চট্টগ্রামের রাউজান উপজেরার মধ্যম বিনাজুরি গ্রামে জন্ম নেন ‘একুশে পদক’ পাওয়া এই ছড়াকার।

এছাড়া শনিবার সুকুমার বড়ুয়ার নিজ গ্রাম মধ্যম বিনাজুরিতে সুকুমার তরুণ সংঘ জন্মদিন উদযাপন, ছড়া পাঠ ও সংবর্ধনার আয়োজন করেছে।

বাংলা ছড়াসাহিত্যের দিকপাল সুকুমার বড়ুয়া প্রায় ৬০ বছর ধরে শুধু ছড়া লিখে ‘ছড়ারাজ’, ‘ছড়াশিল্পী’, ‘ছড়াসম্রাট’ নানা অভিধায় অভিষিক্ত হয়েছেন।

সহজ-সরল কথায় ও ভাষায়, ছন্দ ও অন্ত্যমিলের অপূর্ব সমন্বয় দেখা যায় শিশুতোষ রচনায়। উদ্ভট, ব্যঙ্গাত্মক, হাস্যরসাত্মক, কৌতূহলোদ্দীপক, নৈতিক শিক্ষামূলক রচনার পাশাপাশি গণমুখী, রাজনৈতিক ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় সমৃদ্ধ তার রচনাবলী।

ষাটের দশকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে চতুর্থ শ্রেণির কর্মচারী হিসেবে চাকরি জীবন শুরুর পর থেকেই তার লেখক সত্তার পরিচয় পাওয়া যায়।

১৯৬৩ সালে তোপখানা রোডে ছয় টাকায় বেড়ার ঘর ভাড়া করে স্বাধীনভাবে লেখালেখি শুরু করেন। কচিকাঁচার আসর, খেলাঘর আর মুকুলের মাহফিলে তার লেখা ছাপা হতে থাকে। ১৯৯৯ সালে তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের স্টোর কিপার হিসেবে অবসর গ্রহণ করেন।

তার ছড়াগ্রন্থের মধ্যে উল্লেখযোগ্য হল- ‘পাগলা ঘোড়া’, ‘ভিজে বেড়াল’, ‘চন্দনা রঞ্জনার ছড়া’, ‘এলোপাতাড়ি’, ‘নানা রঙের দিন’, সুকমার বড়ুয়ার ১০১টি ছড়া, ‘চিচিং ফাঁক’, ‘কিছু না কিছু’, ‘প্রিয় ছড়া শতক’, ‘নদীর খেলা’, ছোটদের হাট, মজার পড়া ১০০ ছড়া, সুকুমার বড়ুয়ার ছড়াসম্ভার (২ খণ্ড), ‘যুক্তবর্ণ‘, ‘চন্দনার পাঠশালা’, ‘জীবনের ভেতরে বাইরে‘।

ভাষা ও সাহিত্যে বিশেষ অবদানের জন্য সরকার ২০১৭ সালে সুকুমার বড়ুয়াকে সর্বোচ্চ রাষ্ট্রীয় সম্মান ‘একুশে পদক’ প্রদান করে।

এছাড়া তিনি বাংলা একাডেমি সাহিত্য পুরস্কার, বাংলাদেশ শিশু একাডেমি সাহিত্য পুরস্কার, আলাওল সাহিত্য পুরস্কার, চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাব সম্মাননা, অবসর সাহিত্য পুরস্কার, আনন ফাউন্ডেশন আজীবন সম্মাননা, চন্দ্রাবতী শিশুসাহিত্য পুরস্কারসহ অসংখ্য পুরস্কার পেয়েছেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here