রাউজানে কলা, ডাব ও লেবুর দাম চড়া!

82

অামির হামজা (রাউজান নিউজ)♦ রাউজানে কলা, ডাব ও লেবুর দাম চড়া! রমজান শুরু হওয়ার মাত্র দুই দিন আগেও বাজারে কলার দাম ছিল ডজন প্রতি ৪০/৫০ টাকা । আর লেবু বিক্রি হয়েছে জোড়া ৫/১০ টাকা, অনেক সময় বাজারে লেবু বিক্রি করতে না পেরে বাড়িতে নিয়ে গিয়েছে অনেক বিক্রতা। রমজান শুরু হওয়ার আগে কলা ব্যবসায়ী বাজারে এক ছড়া কলা বিক্রি হয়েছে মাত্র ১৫০ টাকা আর ডজন বিক্রি হয়েছে ২৫/৪০ টাকা । আর ডাব বিক্রি হচ্ছে ৬০/৭০ টাকা পযন্ত, যে ডাবের দাম ছিল মাত্র ৩৫/৪০ টাকা এখন তার বাজার মূল্য আকাশ ছোঁয়া দামে বিক্রি হচ্ছে!

কথা গুলো অবিস্বাস্য হলেও সত্য র্বতমানে রাউজানে প্রতিটি বাজারে “কলা, লেবু, ডাব” চড়া দামে কিনতে হচ্ছে সাধারণ ক্রেতাকে। বাজারে এক হালি লেবু বিক্রি হচ্ছে ৫০ টাকা । আর ১ পিচ কিনতে হলে দাম পড়ছে ১০/১৫ টাকা, ছোট লেবু দাম পড়ছে প্রতি পিচ ৫/৭ টাকা। অথচ একই লেবু এক মাস আগেও বিক্রি হয়েছে ৫/১০ টাকা। আর বিগত পাঁচ-ছয় বছর আগে ১ একটি লেবুর বাজার মূল্য ছিল মাত্র ১টাকা।

পবিত্র মাহে রমজান আসার সাথে সাথে কিছু অসাধু ব্যবসায়ী অধিক মুনাফার আসায় ইচ্ছাকৃত ভাবে এ সব পন্যের দাম বাড়িয়ে দিয়েছে বলে অভিযোগ করেছেন অনেক ক্রেতারা। গ্রাম-বাংলার প্রতিটি মানুষের কাছে লেবুর চাহিদা একটু বেশি। প্রতিদিন খাবার টেবিলে লেবুর একটি অংশ না থাকে তাহলে তাদের খাবার যেন অপরিপূর্ণ থেকে যায়। কিন্তু বর্তমান বাজারে লেবু যেন এক সোনার হরিণ হয়ে দারিয়েছে।

যদিও বাজারে যথেষ্ট পরিমানে চাহিদা থাকলেও সে আকারে যোগান নেই বলছেন লেবু ব্যবসায়ীরা। তাই ব্যবসায়ীরা যে যেমন ভাবে পারছে লেবুর দাম হাকিয়ে ক্রেতার কাছে বিক্রি করছে। অপরদিকে হালি প্রতি দেশী কলা বিক্রি হচ্ছে ৯০/১৫০ টাকা দামে। একটি কলার দাম পরছে ১৫ টাকা । রমজানের আগে জোড়া প্রতি কলার দাম ছিল ৭/১০ টাকা আর ডজন প্রতি কলার দাম ছিল ৪০/৬০ টাকা । রমজান মাসে তার অস্বাভাবিক হারে দাম বেড়ে আকাশ ছোঁয়া রুপ নিয়েছে।

এবিষয়ে কিছু বিক্রেতার কাছে জানতে চাইলে তারা বলেন, রাউজানে কলা আসে রাঙ্গামাটি , বান্দরবান, ও খাগড়াছড়ি থেকে এসব কলার পাইকারি বিক্রিতারা হচ্ছে আমাদের পাশ্ববর্তী রাঙ্গানিয়া উপজেলার তারা আমাদের পাইকারি মুল্য কলা বিক্রি করে তারাও বলছে পাহাড়ে কলার দাম বেড়েছে তাই কলার দাম একটু বেশি দামে সাধারন ক্রেতাকে কিনতে হচ্ছে।

ব্যবসাযীরা বলছেন, গরম আর রমজানে লেবু, কলা, ডাব , ব্যাপক চাহিদা আছে। তবে দাম খুব একটা যে কমবে বলে মনে হয়না। সাধারণ মানুষ বলছেন, র্বতমানে লেবুর ভরা মৌসুম না হলেও চাহিদার তুলনায় বাজারে মিলছে লেবু। আর যে ডাব বিভিন্ন স্থান থেকে গাছিরা ক্রয় করছেন মাত্র ১৩/১৭ টাকা বাজারে আসলে তার মুল্য বর্তমানে ৭০ টাকা । অনেক বাজারে গিয়ে দেখা যায়, দামের কাছে অসহায় সাধারণ মানুষ।

রাউজান নিউজ/অামির হামজা.বার্তা বিভাগ

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here