রাউজানের রাঙ্গামটি সড়ক পাশে বৃহত্তর পরিসরে হচ্ছে নতুন একটি পর্যটন কেন্দ্র

2173

মীর অাসলাম (রাউজান নিউজ) ♦

“মিড পয়ন্ট রির্সোট”এলাকা পরিদর্শন করছেন রাউজানের সাংসদ এবিএম ফজলে করিম চৌধুরী।।

রাউজানের রাঙ্গামটি সড়ক পাশে বৃহত্তর পরিসরে হচ্ছে নতুন একটি পর্যটন কেন্দ্র

চট্টগ্রামের রাউজান রাঙ্গামটি সড়ক পথের পৌরসভার ৯ নং ওয়ার্ডে আরো একটি বড় পরিসরের পিকনিক স্পট ও পর্যটন এলাকা গড়ে তোলা হচ্ছে। আগামী ১৮ জানুয়ারি এখানে রাউজানবাসীকে নিয়ে এলাকার সাংসদ এবিএম ফজলে করিম চৌধুরী এখানে মিলন মেলা করার কথা আছে। পূর্বমুখি মহাসড়কটির বাম পার্শ্বের অন্তত ২০ থেকে ৩০ একর জায়গা জুড়ে গড়ে তোলা এই পর্যটন কেন্দ্রের নাম রাখা হয়েছে “মিড পয়ন্ট রির্সোট”। ভ্রমন রসিক ভিআইপি দর্শনার্থীদের যাওয়া আসার সুবিধায় এখানে করা হয়েছে সুপরিসর হেলিপ্যাড।

উদ্যোক্তাদের আশা এই প্রতিষ্ঠানটি মহাসড়ক পথে ভ্রমনকারীদের দৃষ্টি আকর্ষণ করবে। এই লক্ষ্য নিয়ে এলাকাটি সাজানো হচ্ছে বর্ণিল সাজে। আকর্ষণীয় ভাবে তৈরী করা হচ্ছে সব অবকাঠামো।

জানা যায়, স্থানীয় একজন বেসরকারি উদ্যোক্তা এলাকার সাংসদ এবিএম ফজলে করিম চৌধুরীর অনুপ্রেরণায় নিজেদের ব্যক্তিগত জমিতে এই পর্যটন কেন্দ্র ও পিংকনিক স্পটটি গড়ে তুলেছেন।

পরিদর্শন কালে দেখা গেছে এখানে গড়ে তোলা হয়েছে বিশাল পরিসরে দেশ বিদেশি ফল ও ফুলের বাগান। সাথে আছে সুপরিসর ও লম্বা লেক। সেখানে রাখা আছে ঘুরে বেড়ানোর জন্য নৌযান। রির্সোটে রাখা হচ্ছে দেশি বিদেশি দর্শনার্থীদের বিশ্রামাগার,সুচিশীল সব ধরণের খাবার, আড্ডা দেয়া ও ঘুরে বেড়ানোর জন্য রাখা হচ্ছে আকষর্ণীয় সব ব্যবস্থা। সৌন্দর্য্য বর্ধনে খরচ করা হচ্ছে লাখ লাখ টাকা।

সংশ্লিষ্টদের সাথে কথা বলে জানা যায়, এই প্রতিষ্ঠান থেকে প্রায় অর্ধ কিলোমিটার দুরে প্রতিষ্ঠা পাচ্ছে বিসিক শিল্প এলাকা। এখন থেকে এখানে আনাগোনা বেড়েছে দেশি বিদেশি শিল্প উদ্যোক্তদের। এই প্রতিষ্ঠানটির কাজ দ্রুততার সাথে শেষ করার চেষ্টা চলছে।

তাদের আশা “মিড পয়ন্ট রির্সোট” চট্টগ্রাম অঞ্চলের সেরা বিনোদন কেন্দ্র হিসাবে মানুষের সেবা দিতে পারবে। উল্লেখ্য যে, এই সড়ক পথের রাবার বাগানের প্রাকৃতিক সৌন্দর্য্যরে মাঝে আরো একটি পিকনিক স্পট চালু আছে।

“গিরীছায়া” নামের এই পিকনিক স্পটে রয়েছে মিনি চিড়িয়াখানা, উন্নত খাবার পরিবেশনের আধুনিকমানের রেঁস্তোরা। এখানে প্রায় আসা যাওয়া করেন দেশ বিদেশি অনেক গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তিবর্গ।

গত কয়েক বছর পূর্বে এটিও গড়ে তোলা হয়েছে এলাকার সাংসদ এবিএম ফজলে করিম চৌধুরীর অনুপ্রেরণায়। এই প্রতিষ্ঠানের চেয়ারম্যান স্থানীয় কাউন্সিলর জমির উদ্দিন পারভেজ বলেছেন তার ওয়ার্ডে এক সময় অবহেলিত ছিল।

এখন এটি রাউজানের সবচেয়ে সমৃদ্ধ ও দর্শনীয় এলাকায় পরিণত হয়েছে। তিনি জানান গিরীছায়াকে আরো আকষর্ণীয় ভাবে সাজানোর পরিকল্পনা হাতে নেয়া হয়েছে। মিনি চিরিয়াখানাটিকে করা হবে আরো সমৃদ্ধ।

প্রকৃতি প্রেমিদের বিনোদনের জন্য সৃষ্টি করা হবে সড়কের উপর দিয়ে ঝুলন্ত ব্রিজ। তারা উপভোগ করতে পারবেন সৃষ্টি অপূর্ব প্রাকৃতি সৌন্দর্য।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here