মুনির উল্লাহসহ তার জঙ্গি সমর্থকদের গ্রেফতার দাবিতে-জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে  মুক্তিযোদ্ধাদের মানববন্ধন

68

প্রেস বিজ্ঞপ্তি ঃ মুনির উল্লাহসহ তার জঙ্গি সমর্থকদের গ্রেফতার দাবিতে-জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে  মুক্তিযোদ্ধাদের মানববন্ধন।

রাউজানের কাগতিয়া এশাতুল উলুম কমিল মাদরাসার অধ্যক্ষ মুনির উল্লাহ ও তার পালিত জঙ্গি সন্ত্রাসীদের গ্রেফতার ও অবৈধ ভাবে মুনির উল্লাহ’র অর্জিত সম্পদের হিসাব তদন্ত করে দেখার দাবিতে মানববন্ধন ও সাংবাদিক সম্মেলন করেন চট্টগ্রাম ও রাউজানের বীর মুক্তিযোদ্ধাগণ।

গতকাল মঙ্গলবার তারা এই কর্মসূচি পালন করেন ঢাকাস্থ জাতীয় প্রেসক্লাবে। চট্টগ্রাম থেকে প্রায় তিনশতাধিক মুক্তিযোদ্ধা। ওই কর্মসূচিতে সংহতি প্রকাশ করতে উপস্থিত ছিলেন ঢাকায় রাউজানের অনেক চাকুরীজীবি ও বসবাসকারী। সকালে বিরূপ আবহাওয়ার মাঝে জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে তারা মানববন্ধন করেন।

পরে,প্রেস ক্লাবের মাওলানা আকরাম খান হলে সাংবাদিক সম্মেলন করে তারা বলেন ৭১ সালের মুক্তিযুদ্ধের সময় কাগতিয়া মাদরাসায় রাজাকার ক্যাম্প পরিচালিত হয়েছিল ভণ্ডপীর মুনির উল্লাহ’র প্রয়াত পিতার পৃষ্ঠপোষকতায়।

মুক্তিযুদ্ধের সময় এই রাজাকার ক্যাম্প থেকে গুলি চালিয়ে হত্যা করেছিল বীর মুক্তিযোদ্ধা মুছা খানকে। আহত করেছিল মুক্তিযোদ্ধা আবুল কালামকে। এখন রাজাকার পুত্র মুনির উল্লাহ অনৈতিক ভাবে ওই মাদরাসার অধ্যক্ষের পদ দখল করে রেখেছে, মাদরাসার শিক্ষার্থীদের জঙ্গিবাদে দিক্ষা দিচ্ছে।

তারা অভিযোগ করেন স্বাধীনতা বিরোধীদের সাথে গোপন আঁতাতকারী মুনির উল্লাহ মাদরাসায় জাতীয় পতাকা উঠায় না। শিক্ষার্থীদের জাতীয় সঙ্গীত গাইতে দেয় না। তিনি ধর্মীয় উগ্রবাদে বিশ্বাসী ছাত্রযুবকদের তরিকতের নামে মুনিরীয়া যুবতবলীগের ব্যানারে সংগঠিত করে তাদের দিয়ে ভিন্নমত পোষনকারীদের হামলা মামলা করাচ্ছে।

মাদরাসা ও দরবারের উন্নয়নের নামে নিরহ মানুষের জমি জবরদখল করছেন। তার পালিত জঙ্গিদের হামলায় এক কিশোর নিহত হওয়ার ঘটনাসহ বিভিন্ন সময় মুক্তিযোদ্ধা,আওয়ামীলীগ নেতৃবৃন্দ, আলেম ওলেমাসহ শতাধিক মানুষ মুনির উল্লাহ’র অনুসারীদের হাতে আহত হওয়ার সচিত্র প্রমান তারা সাংবাদিকদের হাতে দিয়েছেন।

সাংবাদিক সম্মেলনে ভণ্ডপীর মুনির উল্লাহসহ তার জঙ্গি সমর্থকদের গ্রেফতার করতে প্রধানমন্ত্রীর নিদেশ কামনা করেন এবং এব্যাপারে সাংবাদিক সমাজের সাহয়তা কামনা করেন।

এই কর্মসূচিতে উপস্থিত থেকে বক্তব্য রাখেন রাউজান উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমাণ্ডার আবু জাফর চৌধুরী,ডেপুটি কমাণ্ডার সরোয়ার কামাল, চট্টগ্রাম জেলা পরিষদের প্যানেল চেয়ারম্যান মুক্তিযোদ্ধা কাজী ওহাব,শেখ আতিকুর রহমান বাবু,মুক্তিযোদ্ধা চেয়ারম্যান আব্বাস উদ্দিন, মুক্তিযোদ্ধা চেয়ারম্যান শফিকুল ইসলাম,মোহাম্মদ সাইদুল হক,ডেপুটি কমাণ্ডার দীলিপ কুমার বড়–য়া,হাজী ইউছুপ,সহকারী কমাণ্ডার নুরুল আমিন প্রমূখ।

রাউজান নিউজ/অামির হামজা.বার্তা বিভাগ

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here