ফজলে করিম হনডে আঁরতে কিছু গুরা কচু লাগবো গুরা কচু-চুয়েটে রাষ্ট্রপতি

1186

আমির হামজা.রাউজান নিউজ: ফজলে করিম হনডে আঁরতে কিছু গুরা কচু লাগবো গুরা কচু। এটাতে ফরমালিন নাই, আর সব কিছুতে ফরমালিন আছে! চট্টগ্রাম প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (চুয়েট) এর ৪র্থ সমাবর্তন অনুষ্ঠান আজ বৃহস্পতিবার দুপুর ২ টা থেকে শুরু হয়ে বিকাল ৪টার দিকে বাংলাদেশের রাষ্ট্রপতি আব্দুল হামিদ বক্তব্যে দিয়ে আয়োজিত সমাবর্তন থেকে তিনি বিদায় নেন। এসময় সমাবর্তনে রাউজানের এমপি ফজলে করিম চৌধুরী একজন চট্টগ্রামের রাউজানের ছেলে হিসবে নয় তিনি সারা চট্টগ্রামের একজন যোগ্য কাজের লোক।তবে সবার জানে আছে আমাদের রাষ্ট্রপতি একজন মজার ও সাদা মনের মানুষ । তিনি যেকোন সমারর্তনে মজার মজার কথা বলে সবাইকে অনেক হাঁসাতে পারেন। তিনি বৃহস্পতিবার চুয়েটেরৈ এই সমারর্তনে তাও করেছেন সবাইকে চট্টগ্রামের ভাষায় নানা কথা বলে হাঁসিয়েছেন।। তিনি যেখানে বক্তব্য দেন হাস্যরসের যোগান দেন। মানুষকে মাতিয়ে রাখেন। এবার তিনি চুয়েটে যা বলেন,চট্টগ্রামে চুয়েটের সমাবর্তন উৎসবের অনুষ্ঠানে এসে আজ বৃহস্পতিবার তিনি বক্তব্যের এক পর্যায়ে ফরমালিন ও খাদ্য মজুদারদের বিরুদ্ধে কথা বলতে গিয়ে বলেন- “ফজলে করিম কন্ড্যে? (রাউজানের সংসদ সদস্য ফজলে করিম চৌধুরী) আঁরতে কিছু গুরা কচু লাগবো। গুরা কচু। এটাতে ফরমালিন নাই, আর সব কিছুতে ফরমালিন আছে।

এই চিটাগাং কি বলবো। আঁই ন ডরাই। ভালা সিনেমা আইছে কিন্ত। আঁই ন ডরাই। আমি চাই এই চিটাগাং এ খালি মেয়েরা বলছে যে আঁই নডরাই , ছেলেরাও আঁই নডরাই কইয়া মাঠে নাইমা পড়তে হবে এই ফরমালিনের বিরুদ্ধে , এই মজুদদারদের বিরুদ্ধে।
রাজনৈতিক নেতাদেরকে শুধু উন্নয়নমূলক কাজ নয়, মানুষকে মোটিভেট করা, এইরকম মজুদারদারদের বুঝিয়ে সুঝিয়ে সঠিক পথে আনা আপনাদের একটা পবিত্র দায়িত্ব। এইগুলো আপনার পালন করবেন। রাষ্ট্রপতি পেঁয়াজ ও চালের দাম বৃদ্ধি ও অসাধু ব্যবসায়ীদের কর্মকান্ডের বিরুদ্ধে কথা বলতে গিয়ে এসব কথা বলেন।
তিনি বলেন, পকেট মারদের যেভাবে গণধোলাই দেয়া হয়। মুখ ফসকে একবার বেরিয়ে গেছিল গণধেলাই। আসলে গণধোলাই না এসব অসাধূ ব্যবসায়ীদের মগজ ধেলাই করতে হবে। তোমরা যারা ছাত্ররা আছো ইয়াং এনার্জেটিক তোমাদেরকে এ দায়িত্ব পালন করতে হবে তাদের বুঝাতে হবে। দেশের মানুষ গ্রামের মানুষ শহরের মানুষ ব্যবসায়ীদের বুঝাতে হবে। যে এগুলি ভালো না। মানুষের রক্ত শোষন করে রাতারাতি বড়লোক হওয়া ঠিক না। রাষ্ট্রপতি আরো বলেন, ইসলাম ধর্মেতো নাই অন্য কোন ধর্মেও নাই এ ধরণের ব্যবসার মাধ্যম্যে মানুষের রক্ত শোষন করা মানুষকে ঠকিয়ে খাওয়া এটা কিন্তু কোন ধর্মে বলেনা। কিন্তু এগুলো করে যাচ্ছে। আপনারা যারা সংসদ সদস্য জন প্রতিনিধি এবং অন্য দলের নেতারা আছেন সবাইকে এ দায়িত্ব নিতে হবে। তিনি এসব গুরুত্বর্পণ কথা বলে বক্তব্যে শেষ করে সমাবর্তন থেকে বিদায় নেন।
**আপনার যেকোনো সংবাদ ও বিজ্ঞাপন রাউজান নিউজে প্রচার করতে আমাদের বার্তা সম্পাদক-আমির হামজা সাথে য়োগাযোগ করতে পারেন-০১৫৫৯-৬৩৩০৮০*বার্তা সম্পাদক আমির হামজা*** 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here