নববর্ষে দেশ গড়তে শপথ নিই

107
কাজী আবু মোহাম্মদ খালেদ নিজাম♦ নববর্ষে দেশ গড়তে শপথ নিই। বাংলা নববর্ষ আমাদের ঐতিহ্য,সংস্কৃতির অঙ্গ।যতদূর জানা যায়, হিজরি সনকে ভিত্তি করেই বাংলা সনের উৎপত্তি হয়েছে। মুঘল শাসনামলে সম্রাট আকবর তার সভা জ্যোতিষী আমীর ফতেহ্উল্লাহ সিরাজীর পরামর্শে হিজরী ৯৬৩ সনকে বাংলা ৯৬৩ সন ধরে বছর গণনার নির্দেশ দেন। সূচনা করেন বাংলা নববর্ষ উদযাপনের।
পয়লা বৈশাখে বাংলা নতুন বছরে পদার্পণ হয়। এদিন বিভিন্ন সংগঠন,সরকারি, বেসরকারি উদ্যোগে বিভিন্ন অনুষ্ঠানের আয়োজন করে থাকে। উৎসবমুখর একটি
পরিবেশ বজায় থাকে সর্বত্র।পুরনো বছরের গ্লানি মুছে সামনে এগিয়ে যাওয়ার শপথ নিতে
হবে। আমাদের দেশে নানারকম সমস্যা বিদ্যমান। রাজনৈতিক সমস্যা থেকে শুরু করে সামাজিক বিভিন্ন সমস্যায় আমরা আক্রান্ত। অনুদার, অসহিষ্ণু আর অসহযোগিতার
মনোভাব আমাদের এগিয়ে চলার পথ রুদ্ধ করছে।
পৃথিবীর অনেক দেশ যারা আমাদের সমপর্যায়ে ছিল তারা এগিয়েছে বহুদূর। দুর্নীতি, স্বজনপ্রীতি,সন্ত্রাস,খুন,ধর্ষণ সহ নানা কারণে আমরা পিছিয়ে পড়েছি। পারছি না শিক্ষা-দীক্ষায়, বিজ্ঞানে উন্নতির শিখরে পৌঁছতে।এই নববর্ষে তাই আমাদের শপথ
নিতে হবে যেন ঐক্যবদ্ধভাবে,ভেদাভেদ ভুলে, হাতে হাত ধরে এগিয়ে যেতে পারি। সকলকে
নিয়েই তো আমার এদেশ, প্রিয় বাংলাদেশ। এদেশটিকে আমরা নিজেদের মনের মতো কি
সাজাতে পারি না? অবশ্যই পারি, যদি আমরা একতাবদ্ধ থাকি।নববর্ষের প্রথম দিন সূর্যাস্তের
সাথে সাথে সবকিছুর সমাপ্তি না টেনে নতুনভাবে উজ্জীবিত হয়ে দেশ ও মানুষের কল্যাণে আত্মনিয়োগ করে, উন্নতির সোপান বেয়ে খ্যাতির শীর্ষে পৌঁছার শপথ নিতে হবে। আর কোন প্রতিহিংসা, সংঘাত, অনৈক্য নয়। ভেসে যাক সব অপরাধ, অপসংস্কৃতি আর
বিদ্বেষ।একদিনের বাঙালি না সেজে বরং এদেশের ইতিহাস, ঐতিহ্য, সংস্কৃতি ধারণ করে এগিয়ে যেতে হবে।সব অপসংস্কৃতি, অনৈতিকতাকে পরিহার করতে হবে। এদেশের
সংখ্যাগরিষ্ঠ মানুষের ধ্যান-ধারণা আর আবেগ, অনুভূতিক প্রাধান্য দিতে
হবে। নিজেকে খাঁটি দেশপ্রেমিক, সুনাগরিক হিসেবে গড়ে তুলতে হবে। আমরা বাঙালি,
বাংলাদেশি। সব ধর্মের মানুষ পারস্পরিক সহযোগিতার মাধ্যমে এদেশে বাস করে আসছে।এদেশের কৃষক, শ্রমিক, মজুর প্রত্যেকেই তাদের ঘাম ঝরাচ্ছে,মূলত কৃষকেরাই বীজ বোনা আর ফসল ঘরে তোলার সুবিধার্থে বাংলা নববর্ষকে আবহমান কাল থেকে কাজে লাগিয়ে আসছে।
যদিও বর্তমানে তা কমে এসেছে।তথাপি ঐতিহ্য ভুলে থাকা সম্ভব নয়।ব্যবসায়ীরা বাংলা নতুন বছরে তাদের হিসাবের নতুন খাতা খুলত, পরিকল্পনা সাজাতো। যাক সেসর কথা।
নববর্ষে, বৈশাখের আবেদন সর্বজনীন, আমরা সমৃদ্ধময় ভবিষ্যতের দিকে তাকাবো।আমাদেরকে দেশের সেবায় বিলিয়ে দিয়ে, স্বদেশ গড়ার শপথ নিতে হবে, এটিই হলো মূলকথা।
লেখক : শিক্ষক ও প্রাবন্ধিক
রাউজান নিউজ/অামির হামজা, বার্তা বিভাগ

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here