তৃতীয় শ্রেণির ছাত্রী অন্তঃসত্ত্বা

793

কুষ্টিয়া প্রতিনিধি♦ তৃতীয় শ্রেণির ছাত্রী অন্তঃসত্ত্বা। শরীর ও জীবন সম্পর্কে কিছুই বোঝার বয়স হয়নি তৃতীয় শ্রেণিতে পড়ুয়া ছাত্রীটির। দীর্ঘ চার মাস ধরে এই শরীরেই আরও একটি শরীরের অস্তিত্ব বয়ে নিয়ে চলেছে কুষ্টিয়ার মিরপুরের আশ্রয়ণ প্রকল্পের বাসিন্দা এই শিশু মেয়েটি।

যথারীতি নিয়মিত স্কুলেও যাতায়াত করছে শিশুটি। এরইমাঝে হঠাৎ মেয়েটির মা লক্ষ্য করলেন তার মেয়ের পেট উঁচু হওয়ার সাথে সাথে শরীরের অন্যান্য পরিবর্তনও হচ্ছে। বিষয়টি নিয়ে এক প্রতিবেশীর সাথে আলাপ করলে দ্রুত চিকিৎসকের কাছে যাওয়ার পরামর্শ দেন তিনি।

ছোট সেই মেয়টি ও তার মা, দাদু

কুষ্টিয়ার মিরপুর উপজেলার একটি ক্লিনিকে পরীক্ষা নিরীক্ষা করেই জানতে পারেন মেয়ের জীবনে ঘটে যাওয়া পাশবিকতার কাহিনি। এরপর পর্যায়ক্রমে ঘটনাটি যায় থানা পুলিশ পর্যন্ত।

মিরপুর থানার অফিসার ইনচার্জ আবুল কালাম জানান, পুলিশের কাছে শিশুটিকে নিয়ে আসার পর বিষয়টি নিশ্চিত হতে কথা বলেন উপজেলা স্বাস্থ্য কেন্দ্রের চিকিৎসকদের সাথে।

প্রাথমিকভাবে ঘটনার সত্যতা পাওয়ায় শিশুটির মা বাদী হয়ে প্রতিবেশী ওসমান ওরফে হামার (৫৫)র বিরুদ্ধে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনের দ:বি: ৯(১) ধারায় ধর্ষণ মামলা দায়ের করেন।

পুলিশ শিশুটিকে হেফাজতে নিয়ে প্রয়োজনীয় ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য কুষ্টিয়া সিভিল সার্ভিস অফিসের মাধ্যমে কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালে প্রেরণ করে বলে নিশ্চিত করেন ওসি।

মামলা সূত্রে জানা যায়, শিশুটি মিরপুর মডেল পাইলট প্রাথমিক বিদ্যালয়ের তৃতীয় শ্রেণির ছাত্রী। উদ্বাস্তু পরিবারের এই শিশুটি তার মায়ের সাথে উপজেলার একটি আশ্রয়ণ প্রকল্পে থাকে। প্রায় সাড়ে ৪ মাস পূর্বে স্কুল থেকে বাড়ি ফিরলে মায়ের অবর্তমানে পানি পানের কথা বলে বাড়িতে ঢুকে একই আশ্রয়ণ প্রকল্পের বাসিন্দা প্রতিবেশী ওসমান ওরফে হামার (৫৫) ওড়না দিয়ে মুখ বেধে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে এবং বিষয়টি কাউকে না বলার জন্য মেরে ফেলানোর ভয়ভীতি দেখায়। ফলে মেয়েটি ভয়ে কাউকেই কিছু জানায়নি। শিশুটির ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য দুই সদস্য বিশিষ্ট মেডিকেল টিম করে কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে। তবে প্রাথমিকভাবে শিশুটিকে প্রায় সাড়ে ৪ মাসের অন্ত:সত্ত্বা হিসেবে মনে করা হচ্ছে।

অভিযুক্ত ওসমান ওরফে হামার এর গ্রামের বাড়ি নওগাঁ জেলাতে। কিন্তু আশ্রয়ণ প্রকল্পের ঠিকানা ছাড়া তার বিস্তারিত ঠিকানা বা পিতার নাম পাওয়া যায়নি।

রাউজান নিউজ/অামির হামজা, বার্তা বিভাগ

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here